প্রেমের বিষে প্রাণ দিতে হলো শাহিনুরকে, সুখের ঘর বাধা হলো না তার।

ক্রাইম রিপোর্ট

নিজেস্ব প্রতিবেদনঃ আশুলিয়ায় সিনিয়র প্রেমিকা ও জুনিয়র প্রেমিক কর্তৃক দেড় বছর আগে বিয়ে হয়, সেই বিয়ের পর থেকে পারিবারিক ভাবে জটিলতা সৃষ্টি হয়, এর জেরে স্বামী কর্তৃক স্ত্রীকে গলাটিপে হত্যার ঘটনা ঘটেছে। জানা গেছে, আশুলিয়ার কাঠগড়া রোডের চিত্রশাইল ওহাব আলী মোল্লার বাড়ির ভাড়াটিয়া সিরাজগঞ্জ জেলার শাহাজাদপুর থানার সিকরামপুরের মোঃ রিপন আলী সরকার (১৯), এর স্ত্রী মোছাঃ শাহিনুর (২১) কে হত্যা কাণ্ড ঘটিয়ে পালিয়ে যায়, এ ঘটনার পর ওই বাড়ির মালিক ওহাব মোল্লাকে পাওয়া যায়নি, অনেকেই বলেন, এই ঘটনার পর থেকে বাড়িওয়ালা ওহাব পালিয়েছে। ঘটনাস্থল ওই বাড়ির ম্যানেজার সালাউদ্দিন ওরফে (সাগর) গণমাধ্যমকে জানায়, শাহিনুর ও তার স্বামী রিপন সরকার
নতুন ভাড়াটিয়া, মাত্র ২০দিন আগে তারা এই বাসায় আসছিলেন। এ বিষয়ে বাড়ির ম্যানেজার আরও বলেন, গত ২৭/০৯/২০২০ইং তারিখে নতুন ভাড়াটিয়া হিসেবে ভাড়া নিয়েছেন রিপন ও শাহিনুর দম্পতি, তাদের মধ্যে কথা কাটাকাটি হতো, তারা এর আগের বাসায় এক মাস ছিলেন, কোনো বাসায় বেশিদিন থাকতে পারতেন না, এর কারণ হলো স্ত্রী সিনিয়র ও স্বামী জুনিয়র এই নিয়ে তাদের মধ্যে জগড়া বিবাদ ছিলো। ওই ম্যানেজারের স্ত্রীসহ বাসার অন্যরা বলেন, অফিস থেকে শাহিনুর বেতন পাওয়ার পর তাকে মোবাইল ফোন কিনে দেয়ার কথা বলে তার স্বামী রিপন, মোবাইল কিনে না দেয়ায় স্বামী স্ত্রীর সাথে কথা কাটাকাটি হয়। এরপর গত শুক্রবার দিবাগত রাতের কোনো এক সময় শাহিনুরকে হত্যা করে স্বামী রিপন তার ভাড়া রুমে তালাবদ্ধ করে পালিয়ে যায়।
এরপর শনিবার ১৭ অক্টোবর সকালে আশুলিয়া থানা পুলিশের সংবাদ দিলে পুলিশ এসে ঘটনাস্থল থেকে লাশ উদ্ধার করেন। এ ব্যাপারে আশুলিয়া থানার উপ-পুলিশ পরিদর্শক জয়ন্ত মজুমদার বলেন, আশুলিয়ার কাঠগড়া রোডের চিত্রশাইল মানিকগঞ্জ পাড়ার ওহাব আলী মোল্লা’র বাড়ির একটি কক্ষ থেকে শাহিনুর নামের এক নারীর লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। তিনি আরও বলেন, ময়না তদন্ত রিপোর্ট হাতে আসলে এই নারীর হত্যাকান্ডের কারণ নিশ্চিত হওয়া যাবে। রিপনকে গ্রেফতারের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, এ হত্যার ঘটনায় কাউকে গ্রেফতার করা হয়নি, তবে এ হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত আসামী গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *