এক দশক পার করলেন শারমিন আঁখি

বিনোদন

মারুফ সরকার ,বিনোদন প্রতিনিধি : শারমিন আঁখি, একজন দর্শকপ্রিয় অভিনেত্রী। আমাদের দেশের নাটকে অভিনয়ে যাদের শেকড়’টা মঞ্চের হয় তাদেরকে নির্মাতা, সহশিল্পীরা অনেকটাই সম্মানের চোখে দেখেন। কারণ ধরে নেয়া হয় যে মঞ্চ থেকে উঠে আসা শিল্পী অভিনয়ে নিজেকে সিদ্ধহস্ত করেই অভিনয়ে আসেন। শারমিন আঁখির ক্ষেত্রেও হয়েছে তাই। তিনি মঞ্চ থেকে উঠে আসা একজন অভিনয় শেখা অভিনেত্রী। চট্টগ্রামে বেড়ে ওঠা আঁখি’র মঞ্চে যাত্রা শুরু ‘অরিন্দম নাট্য সম্প্রদায়’র মধ্যদিয়ে। এই দলের নিয়মিত প্রযোজনা তারাসংকর বন্দ্যোপাধ্যায়ের ‘কবি’ নাটকের মূল চরিত্র ‘বসন’ করেই আলোচনায় আসেন তিনি। পরবর্তীতে টিভি নাটকে আলোচনায় আসেন তিনি শিহাব শাহীনের ‘অনামিকা’ ও ইয়ামন ইলানের ‘আজ বাবার বিয়ে’ নাটকে অভিনয় করে।

তার আগে অবশ্য ২০১০ সালে নারগিস আক্তারের পরিচালনায় প্রথম তিনি ‘ভালোবাসা কী করে ভালো হয়’ নাটকে অভিনয় করেন। পরবর্তীতে দেবাশীষ বড়ুয়া দীপের ধারাবাহিক ‘ঘটক বাকি ভাই’,  ‘চার কন্যা’, আশাপুর্না দেবীর বালুচুরি উপন্যাস অবলম্বনে ‘অপরাজিতা’, রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ‘মধ্যবর্তিনী’, গিয়াস উদ্দিন সেলিম এর ‘রৌদ্র ছায়ার খেলা’, বাশার জর্জিজ এর ‘গ্রামের নাম সুবর্ণপুর’, সালাউদ্দিন লাভলুর ‘মাই নেম ইজ ব্যাড’ নাটকে অভিনয় করেও বেশ প্রশংসিত হন শারমিন আঁখি। তার অভিনীত প্রথম চলচ্চিত্র ১১ জন পরিচালকের নির্মিত চলচ্চিত্র ‘ইতি তোমারই ঢাকা’। ভারত বাংলাদেশের যৌথ প্রযোজনায় অরিজিত মুখার্জির ‘শ্যাডো’ স্বল্প দৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন তিনি। এছাড়াও আরিক আনাম খান এর ‘ট্রানজিট’,  নোমান রবিন এর ‘এ কোয়ার্টার মাইল কান্ট্রি’, আফজাল হোসেন মুন্নার ‘শেভুলুশন’-এও অভিনয় করেছেন তিনি। মুক্তির অপেক্ষায় আছে ইমতিয়াজ সজিবের  ফিচার ফিল্ম ‘জাস্ট এ জোক ডারলিং’  এবং রাশেদ রাহার একটি অ্যান্থলজি ফিল্ম। শারমিন আঁখি ভালো ভালো কাজে নীরবে অভিনয় করেগেছেন।

 নিজের ভালো কাজগুলো দিয়ে নিজেকে আলাদাভাবে জাহির করতে চাননি কখনো। যে কারণে একটি দশক কীভাবে পার হয়েগেছে তা তিনি নিজেও টের পাননি। নিজের অভিনয় জীবন প্রসঙ্গে শারমিন আঁখি বলেন,‘  মহড়াকক্ষে নাটকের চরিত্র বিশ্লেষণ করতে গিয়েই প্রথমে অভিনয়ের প্রেমে পড়ি। এরপর অভিনয়ে নিয়মিত হতে শুরু করি। দেখতে দেখতে একটি দশক কীভাবে পার হলো টেরই পেলামনা। অভিনয় করছি। সামনেও করে যেতে চাই। কারণ অভিনয়টা আমার রক্তে মিশে আছে। আগামীতে ভালো কিছু কাজ দর্শকদের উপহার দিয়ে যেতে চাই। কারণ, খ্যাতির পিছনে ছুটিনি কখোনো। অভিনয় থেকে প্রাপ্তি শুধু দর্শকের অফুরন্ত  ভালোবাসা। আর যারা আমাকে নিয়ে কাজ করেন তাদের প্রতি শ্রদ্ধা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *