আশুলিয়ায় রাস্তায় ড্রেন নির্মাণকে কেন্দ্র করে কিশোর গ্যাং সন্ত্রাসী হামলা!

ক্রাইম রিপোর্ট

বিশেষ প্রতিনিধিঃ ঢাকার আশুলিয়ার কাঠগড়া এলাকায় সড়কের মধ্যদিয়ে রাস্তা কর্তন করে ড্রেন নির্মাণকে কেন্দ্র করে কিশোর গ্যাং সন্ত্রাসী হামলা ও ২ রাউন্ড গুলির ছোঁড়ার অভিযোগে সাধারণ মানুষকে আটক করে মারধর করার অভিযোগ উঠেছে।
রবিবার (৬ জুন বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে সরেজমিনে গিয়ে আশুলিয়ার কাঠগড়া পশ্চিমপাড়া ও দক্ষিণপাড়ার স্থানীয়দের তথ্যের ভিত্তিতে জানা যায়, আশুলিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের নেতা স্থানীয় ফারুক আহমেদ ও স্থানীয় শাহিন
পালোয়ানের জনস্বাথে ব্যক্তিগতভাবে ড্রেন লাইন নির্মাণ নিয়ে দুই পক্ষের বিরোধ চলছিলো। উক্ত দুইজনই ঢাকা জেলার সাভার উপজেলা প্রকৌশলী সালেহ হাসান প্রমানিক এর কাছে রাস্তা কর্তন করে ড্রেন করার জন্য আবেদন করেন। এরপর থেকে শুরু হয় প্রতিযোগিতা-কে কাজ করবে, কার ক্ষমতা কত বেশি এই নিয়ে দুই পক্ষের লোকজনের মধ্যে
সংঘর্ষ হয়। সূত্র জানায়, ফারুক আহমেদ এর ভাড়াটিয়া কিশোর গ্যাং সন্ত্রাসীরা অস্ত্র নিয়ে তারা শাহিন পালোয়ানের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান গ্রীলের দোকানে হামলা করে তার লোকজনকে মারধর করে তার ম্যানেজার ওলি শেখকে তুলে নিয়ে গিয়ে পুলিশে সোপর্দ করেছে।
আশুলিয়া থানায় অভিযোগ সূত্রঃ আশুলিয়ার কাঠগড়ায় দাবিকৃত চাঁদার টাকা না পেয়ে এক ঠিকাদারকে লক্ষ্য করে গুলি ছোঁড়ার অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা শাহিন পালোয়ানের বিরুদ্ধে। রবিবার বেলা ১২টার
দিকে আশুলিয়া ইউনিয়নের কাঠগড়া পশ্চিমপাড়া এলাকায় এই ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় ফারুক আহমেদ এর পক্ষে ফিরোজা এন্টারপ্রাইজের মালিক ঠিকাদার বেলাল আশুলিয়া থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। পুলিশ
ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে শাহিন পালোয়ানের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের ম্যানেজার মো. ওলি শেখকে আটক করেছে। আটককৃত ওলি মানিকগঞ্জের আব্দুল সাত্তারের ছেলে। শাহিন পালোয়ান আশুলিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক।
আশুলিয়া থানায় অভিযোগকারী বেলাল গণমাধ্যমকে বলেন, কাঠগড়া পশ্চিমপাড়া এলাকায় সকাল থেকে তার শ্রমিকদের দিয়ে ড্রেনের কাজ করাচ্ছিলেন, দুপুর ১২ টার দিকে আশুলিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাংস্কৃতিক বিষয়ক
সম্পাদক শাহিন পালোয়ান ও তার দোকানের ম্যানেজার ওলিসহ সেখানে যান, এ সময় তারা চাঁদা দাবি করে কাজ বন্ধ করতে বলেন। তিনি দাবি করেন যে, এসময় শাহিন পালোয়ান তার কোমর থেকে পিস্তল বের করে ঠিকাদার বেলালকে লক্ষ্য
করে দুই রাউন্ড গুলি ছোঁড়েন এবং পালিয়ে যান তারা, একটি গুলিও তার শরীরে লাগেনি। এদিকে একই সময়ে ঠিকাদার বেলাল এর কিশোর গ্যাং সন্ত্রাসী ওয়ান বাহিনী ওলিকে তার কর্মস্থল থেকে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে ধরে তুলে নিয়ে
গিয়ে মারধর করে তারা পুলিশের কাছে সোপর্দ করে তাকে। এ প্রসঙ্গে শাহিন পালোয়ানের চাচা আলী আহমেদ জানান, কাঠগড়ার আমতলা থেকে বেঙ্গল মোড় পর্যন্ত আশেপাশের ১৯২০মিটার রাস্তা কর্তন ও মোট ৩টি সড়কের ৬ হাজার ৪৮০ মিটার ড্রেন নির্মান কাজের অনুমোদন আনেন তারা। আওয়ামী লীগ নেতা ফারুক আহমেদ ও তার লোকজন নিজেদের অনুমোদন আনা ৭শ’ মিটার কাজের বাইরে গিয়ে জোড় করে তারা রাস্তা কাটছে, এতে বাঁধা দেওয়ায় এই নাটকীয় রহস্যজনক ঘটনা ঘটিয়েছে, এত এলাকার জনসাধারণ আতংকের মধ্যে রয়েছে। এই ড্রেনের কাজ নিয়েই মূলত বিরোধ চলছিলো, তিনি বলেন, আমি কোনো গুলির শব্দ শুনিনি বা জানিনা।
এ ব্যাপারে আওয়ামী লীগ নেতা শাহিন পালোয়ানের কাছে জানতে গিয়ে তার দেখা মেলেনি এবং তার মোবাইল ফোনেও পাওয়া যায়নি। আওয়ামী লীগ নেতা ফারুক আহমেদ এর কাছে এ বিষয়ে জানতে তার মোবাইল ফোনে একাধিকবার কল করা হলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি। আশুলিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. শাহাব উদ্দিন
মাদবরের কাছে এ ব্যাপারে জানতে গিয়ে তাকেও পাওয়া যায়নি। সূত্র জানায়, উক্ত এলাকায় প্রায়ই লাশ উদ্ধার হয়, স্থানীয়রা জানায়, ক্রাইম জোন এলাকা কাঠগড়ায় কিছু কিশোর গ্যাং মাদক সন্ত্রাসী আছে, তারা ভাড়াটিয়া হিসাবে কাজ করে আর বিভিন্ন অপরাধমূলক কর্মকান্ড করে থাকে। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী অভিযান চালিয়ে
দুই চারজনকে আটক করলেও তারা আদালত থেকে জামিনে এসে আবারও যা তাই, এলাকায় চুরি, ডাকাতি, ছিনতাই, চাঁদাবাজি, অপহরণ, খুন, ধর্ষণসহ বিভিন্ন অপরাধমূলক কর্মকান্ড (ক্রাইম) করে। উক্ত এলাকায় শুধু ড্রেন নির্মাণ কাজ নিয়ে বিরোধ নয়, গুলি ও কিশোর গ্যাং মাদক সন্ত্রাসীদের বিষয়ে গোয়েন্দা সংস্থা’র সদস্যগণ তদন্ত করলে
সবকিছুই জানা যাবে বলে সচেতন মহল ধারণা করছেন। এ বিষয়ে আশুরিয়া থানার উপপরিদর্শক (এসআই) সুদীপ কুমার গোপ গণমাধ্যমকে বলেন, আশুলিয়ার কাঠগড়া ঘটনাস্থল পরিদর্শনে গিয়ে গুলির কোনো আলামত পাওয়া যায়নি, তবে ওলি শেখ নামের একজনকে আটক করা হয়েছে
বলে তিনি জানান। এ ব্যাপারে তদন্ত করে দেখা হচ্ছে বলেও তিনি জানিয়েছেন। উক্ত এলাকায় দুই  গ্রূপের  বিরোধ এর কারণে যেকোনো সময় বড় ধরণের সংঘর্ষ হতে পারে বলে ধারণা করছেন এলাকাবাসী, এলাকার শান্তি শৃঙ্খলা রক্ষায় আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে উপর মহলের হস্তক্ষেপ কামনা করছেন সচেতন মহল ও এলাকার শান্তি প্রিয় জনগণ। পর্ব ১।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *