আশুলিয়ায় ভ্রাম্যমান আদালতে অবৈধ ক্লিনিককে জরিমানা ও নয়নজুলি খাল পরিদর্শন!

আইন শৃঙ্খলা

হেলাল শেখঃ ঢাকার আশুলিয়ায় ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযানে একাধিক ক্লিনিকের জরিমানা শেষে সরকারি নয়নজুলি খাল পরিদর্শন করেছেন সাভার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাজহারুল ইসলাম। বুধবার (১৬ জুন ২০২১ইং) দুপুর ১টার দিকে প্রথমে ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান পরিচালনা  করে আশুলিয়ার নরসিংহপুর নিউ মর্ডাণ ডায়াগনস্টিক সেন্টারের লাইসেন্স না থাকায় সাভার উপজেলা নির্বাহী  কর্মকর্তা মাজহারুল ইসলাম ও উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাঃ সায়েদুল হুদা’র নির্দেশে সিলগালা করা হয়।  এরপর জামগড়া চৌরাস্তায় আর. এম ডায়াগনস্টিক কমপ্লেক্সে সঠিক কাগজপত্র না থাকায় ২০ হাজার টাকা  জরিমানা করেন ভ্রাম্যমান আদালত এদিকে শতবর্ষ পুরনো সরকারি নয়নজুলি খালটি প্রভাবশালীদের দখলে: বে-সরকারি  টেলিভিশনে ও প্রিন্ট মিডিয়ায় সংবাদ প্রকাশ হওয়ায় ঢাকা জেলা প্রশাসক ডিসি ও সাভার উপজেলা প্রশাসনের নজরে আসে।  বুধবার বিকেল ৬টা পর্যন্ত নয়নজুলি খালটি পরিদর্শন করেন এবং খুব দ্রুত সময়ের মধ্যে খালটি উদ্ধার অভিযান  পরিচালনা করা হবে বলে গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন সাভার উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাজহারুল ইসলাম। উক্ত অভিযানের বিষয়ে জানতে চাইলে সাভার উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাঃ সায়েমুল হুদা  গণমাধ্যমকে বলেন, বিধিমোতাবেক একটি ডায়াগনস্টিক সেন্টার বা হাসপাতাল পরিচালনার জন্য সরকার যে সকল  নীতি প্রনয়ণ করেছেন তা অনেকেই বাস্তবায়ণ করছেন না। তিনি আরও বলেন, আমাদের উপজেলা নির্বাহী  ম্যাজিস্ট্রেট আছেন তিনি শাস্তি প্রদান করেছেন এবং সঠিক কাগজপত্র না থাকায় জামগড়ায় আর. এম ডায়াগনস্টিক  কমপ্লেক্সকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন। তিনি বলেন, আমি বিশ্বাস করি সাভার আশুলিয়ায় স্বাস্থ্য সেবায়  জিরো টলারেন্স থাকবে। সাভার উপজেলা নির্বাহী কর্র্মকর্তা মাজহারুল ইসলাম গণমাধ্যমকে বলেন, আমরা গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বিভিন্ন মাধ্যমে এই অভিযোগগুলো পাচ্ছিলাম, এবং তদন্ত করে সুনির্দিষ্ট তথ্যের ভিত্তিতে  উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তাকে সাথে নিয়ে আশুলিয়ায় পৃথক দুইটি ক্লিনিকে অভিযান পরিচালনা করি।  অভিযানকালে প্রথমে নরসিংহপুর নিউ মর্ডাণ ডায়াগনস্টিক সেন্টারের লাইসেন্স না থাকায় সিলগালা করা হয়। দ্বিতীয়ত জামগড়ায় আর. এম  ডায়াগনস্টিক কমপ্লেক্স এর ভুয়া কাগজপত্রে প্রচারণা করাসহ সঠিক কাগজপত্র না  দেখানোর অপরাধ ও মানুষকে ঠকানোর অপরাধে ভোক্তা অধিকার আইনে ২০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। এই  প্রতিষ্ঠানটি লাইসেন্স নবায়নের জন্য আবেদন করেছিলেন, এই অপরাধ করার কারণে বিধিমোতাবেক সেটি বাতিলের  জন্য স্বাস্থ্য অধিদপ্তরে প্রেরণ করা হবে বলেও তিনি জানান। সেই সাথে স্বাস্থ্য সেবায় কোনো প্রকার দুর্নীতি চলবে না,  পণ্য কিনে কেউ ঠকলে অভিযোগ পেলে আমরা আইনগত ব্যবস্থা নিবো। তিনি আরও বলেন, নয়নজুলি  খালটি উদ্ধারের জন্য দ্রুত অভিযান পরিচালনা করা হবে, এবং আমাদের এ ধরনের অভিযান অব্যাহত থাকবে। এসময়  নিরাপত্তায় ছিলেন, আশুলিয়া থানার (এসআই) তানিমসহ সঙ্গীয় ফোর্স।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *