সঞ্জীব দাসের ‘ঘর জামাই থাকতে চাই’

বিনোদন

মারুফ সরকার, বিনোদন প্রতিনিধি :  এখন কাউকে আর খুব একটা ঘর জামাই হিসাবে থাকতে দেখা যায় না। কিন্তু চল্লিশ বছর বয়সী মাজেদের বিয়ে হচ্ছে না বলে সে বাধ্য হয়ে ‘ঘর জামাই থাকতে চাই’ শিরোনামে পত্রিকায় একটা বিজ্ঞাপন ছাপিয়েছে। ছাপাবেনাই বা কেন? মাজেদের ইহজগতে কেউ নেই। কিছু জমি-জায়গা আছে আর আছে একটা চ্যালা সাগর। সাগরকে সে ছোটভাই’র মত জানে। কিন্তু সাগর একটু ধুরন্দর ধরনের। মাজেদকে ভাঙানোই তার মূল কাজ। সেই সাগরের বুদ্ধিতে মাজেদ ঘর জামাই থাকার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। পারিবারিক সুখ-শান্তি কি জিনিষ মাজেদ তা জানে না। কিশোর বয়সেই সে বাবা-মাকে হারিয়েছে। এখন বয়স চল্লিশ, আরো দেরি করলে শেষে বিয়েই না হয়।

এই ভয় দেখিয়ে সাগর মাজেদকে রাজি করিয়েছে। তবে মাজেদের আবার পরপোকারী স্বভাব। সেই সুত্রে গ্রামে বেশ নাম-ডাক আছে। পরপোকার করতে গিয়েই সে বিয়ের দিকে নজর দেয়নি। বেলায় বেলায় কখন যে বিয়ের বয়স পেরিয়ে গেছে টেরই পায়নি। বলা চলে এই সাগরই মাজেদকে এতদিন বিয়ের ব্যাপারে নিরুৎসাহিত করেছে। কেননা, মাজেদের বিয়ে হয়ে গেলে তো তাকে আর ভাঙানো যাবে না, খসানো যাবে না। এখন সাগরের নজর মাজেদের বিষয়-সম্পত্তির উপর।

 বিয়ের পর মাজেদ যদি ঘর জামাই থাকে তাহলে যেভাবেই হোক মাজেদকে পটিয়ে সাগর তার বিষয়-সম্পত্তি ভোগ-দখল করতে পারবে। ঘটতে থাকে নানা নাটকীয় ঘটনা। লিটু সাখাওয়াত এর রচনায় নাটকটি পরিচালনা করেছেন সঞ্জীব দাস। তালুকদার মাল্টিমিডিয়ার প্রযোজনায় নাটকটিতে অভিনয় করেছেন মুকিত জাকারিয়া, তানিন তানহা, জাভেদ মিন্টু, অপু আহমেদ, রফিক,মুনিয়া আলম, সায়েল তালুকদার, ফারজানা জয়া, রানিশা। নির্মাতা সূত্রে জানা গেছে, আসছে ঈদুল আযহায় নাটকটি প্রচার হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *