খানপুর ইউনিয়ন পরিষদ….. ৩ মাস বন্ধ জন্ম নিবন্ধনের কাজ

সারাদেশ

মোঃ আব্দুর রহমান, মনিরামপুর (যশোর) প্রতিনিধি :
আগামী বছর মেয়ে সুরাইয়া আলমকে (৬) স্কুলে ভর্তি করাবেন বলে গেল জুন মাসে ইউনিয়ন পরিষদে জন্ম নিবন্ধনের জন্য আবেদন করেছিলেন মাছনা গ্রামের জাহাঙ্গীর আলম। আবেদনের তিন মাস পার হলেও জন্ম সনদ হাতে পাননি তিনি। মেয়ে সুমাইয়া খাতুনের জন্ম নিবন্ধন না থাকায় তিনমাস আগে খানপুর ইউনিয়ন পরিষদে জন্ম সনদের
আবেদন করে পাননি শেখপাড়া খানপুর গ্রামের ইজ্জেত আলী।
শুধু জাহাঙ্গীর বা ইজ্জেত আলী নয় খানপুর ইউনিয়নের এমন অন্ততঃ দুইশ ব্যক্তি সন্তানের
জন্ম নিবন্ধনের আবেদন করে রেখেছেন। তারা কেউ সনদ হাতে পাননি। কোড জটিলতার
জন্য ওই ইউনিয়ন পরিষদের জন্ম নিবন্ধনের কাজ আটকে আছে তিনমাস ধরে। একাধিকবার
পরিষদের পক্ষ থেকে ইউএনওসহ ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানিয়েও সুরাহা মিলছে না।
খানপুর ইউনিয়ন পরিষদের উদ্যোক্তা বাহারুল ইসলাম বলেন, গত ১৫ জুন থেকে জন্ম
নিবন্ধনের কাজে সমস্যা হচ্ছে। মনিরামপুর উপজেলার ১৭ সংখ্যার ব্যাপন নম্বরে উপজেলা
কোড ৬১। কিন্তু জন্ম নিবন্ধনের রেজিস্ট্রেশন করে ডাউনলোড দিতে গেলে উপজেলা কোডে ৬১ এর স্থানে ৬২ আসছে। এই কারণে মূলতঃ কাউকে জন্ম নিবন্ধনের কপি দিতে পারছি না। গত তিনমাসে অন্ততঃ ২০০ জন জন্ম সনদের জন্য আবেদন করেছেন। সবারটা জমা পড়ে আছে। বাহারুল ইসলাম বলেন, বিষয়টি নিরসনের জন্য মনিরামপুরের ইউএনও, যশোরের ডিডিএলজি, স্থানীয় সরকার বিভাগের জন্ম-মৃত্যু নিবন্ধন কার্যালয়ের রেজির্ষ্ট্রাড জেনারেল বরাবর লিখিত আবেদন করেছি। কোন কাজ হয়নি। খানপুর
ইউনিয়ন পরিষদের সচিব ফরিদ হোসেন বলেন, মাসখানেক আগে জন্ম নিবন্ধনে উদ্বুদ্ধকরণ বিষয়ে সব ইউপি সচিবদের সাথে স্থানীয় সরকার বিভাগের সচিব মহোদয়সহ অন্য কর্মকর্তাদের জুম মিটিং হয়েছিল। সেখানে আমি বিষয়টি উপস্থাপন
করেছিলাম। মিটিং চলা অবস্থায় সমস্যাটি সমাধান হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু হয়নি। খানপুর ইউপি চেয়ারম্যান গাজী মোহাম্মদ আলী বলেন, জন্ম নিবন্ধনের আবেদন নিয়ে নিয়মিত লোকজন পরিষদে আসছেন। আমরা কোন কাজ করতে পারছিনা। কোডের সমস্যা নিয়ে সংশি-ষ্ট সব অফিসে একাধিকবার বলছি। মনিরামপুরের ইউএনওকে অন্ততঃ ছয় বার বিষয়টি জানাইছি। কাজ হয়নি। মনিরামপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সৈয়দ জাকির হাসান বলেন, খানপুর ইউনিয়ন পরিষদের জন্ম নিবন্ধনের জটিলতার বিষয়টি কোড
সরবরাহ কর্তৃপক্ষকে চিঠি ও ফোনের মাধ্যমে একাধিকবার জানিয়েছি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *