কুড়িগ্রামে মিথ্যা মামলা থেকে বাঁচতে সংবাদ সম্মেলন

রংপুর
কুড়িগ্রাম জেলা প্রতিনিধিঃ
কুড়িগ্রামে মিথ্যা মামলা, হয়রানি ও জীবননাশের হুমকী থেকে মুক্তি পেতে সংবাদ সম্মেলন করেছে এক ভুক্তভোগী পরিবার। 
সোমবার দুপুরে কুড়িগ্রাম প্রেসক্লাবের সৈয়দ শামসুল হক মিলনায়তনে গণমাধ্যমকর্মীদের সামনে ভুক্তভোগী পরিবারের পক্ষ থেকে নিজেদের অসহায়ত্বের বর্ণনা দেন অভিযোগকারী মোহাম্মদ আলী।
লিখিত বক্তব্যে জানানো হয়, কুড়িগ্রাম পৌরসভাধীন ভেলাকোপা গ্রামের কেচাপাড়ার অধিবাসী মোহাম্মদ আলীর পৈত্রিক বসতভিটার পিছনে কুড়িগ্রাম শহরের পুরাতন থানাপাড়াা এলাকার ব্যবসায়ী সাইফুদ্দিন এ্যাপেলো ১৭শতক জমি কেনেন। তিনি সেখানে ময়দা মিলের স্থাপনা তৈরীর উদ্যোগ নেন। কিন্তু মেইন রাস্তার সাথে স্থাপনায় যাওয়ার কোন রাস্তা নেই। সেখানে অভিযোগকারী মোহাম্মদ আলীর পৈত্রিক বসতভিটা রয়েছে। প্রথমে ভুক্তভোগী পরিবারটিকে উচ্ছেদের চেষ্টা করেন ভূমিদস্যু এ্যাপেলো। সেটি করতে না পেরে পরবর্তীতে সন্ত্রাসীদের নিয়ে জমি জবরদখলের চেষ্টা করেন। বিষয়টি বুঝতে পেরে জমি রক্ষায় কুড়িগ্রাম সদর সিনিয়র সহকারি জজ আদালতে ইনজাংশন মোকদ্দমা দায়ের করেন মোহাম্মদ আলীর পূত্র হামিদুল ইসলাম। এতে নোটিশ প্রাপ্ত হয়ে বিবাদীপক্ষ আরো ক্ষিপ্ত হয়ে বাদীদের হয়রাণি ও আর্থিক ক্ষতিগ্রস্ত করতে ৩টি চাঁদাবাজী ও একটি ১০৭ ধারায় মামলা দেন। এতে ভুক্তভোগী পরিবারের প্রধান আলু ব্যবসায়ী মোহাম্মদ আলীসহ তার ৫ পূত্র দুই দফায় প্রায় ১৮দিন কারাবাস ভোগ করেন। এতেও বসতভিটার ৩শতক জমি দখল করতে না পেরে বাদীদের কোণঠাসা করতে নানারকম অপতৎপরতাসহ জীবননাশের হুমকী দিচ্ছে বিবাদী সাইফুদ্দিন এ্যাপেলো তার ভাই মো. শামসুদ্দিন, সোহরাব আলী ও মৃত: হাসমত উল্যাহর পূত্র নিজাম উদ্দিন গংরা। বাদী মোহাম্মদ আলী ও তার পরিবারের আশঙ্কা বিবাদীরা বড় ক্ষতি করার মানসে ভাড়াটিয়া মহিলা দ্বারা মিথ্যা নারী নির্যাতন মামলা বা বাড়ীতে মাদক রেখে মিথ্যা দুর্নাম ছড়িয়ে পুলিশী হয়রাণি করতে পারে। 
সংবাদ সম্মেলনে আরো উল্লেখ করা হয়েছে, ময়দা মিলের জন্য যে জমি ক্রয় করা হয়েছে তার চারপাশে প্রায় ৫০টি পরিবার রয়েছে। এখানে ময়দার মিল করা হলে পরিবারগুলো চরম ভোগান্তির মধ্যে পরবে। এজন্য সরজমিন ঘটনাস্থল পরির্দশন ও তদন্ত পূর্বক প্রকৃত ঘটনা জেনে হুমকীদাতা সাইফুদ্দিন এ্যাপেলোর পরিবারের নির্যাতন থেকে মুক্তি পেতে পরিবারটি আর্তি জানিয়েছে।
সংবাদ সম্মেলনে বাদি মোহাম্মদ আলীসহ তার পুত্ররা উপস্থিত ছিলেন। এ সময় জেলায় কর্মরত প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ায় কর্মরত সংবাদ কর্মীগণ উপস্থিত ছিলেন।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *