ইউপি নির্বাচন: কুড়িগ্রামে ২৭ ইউনিয়নের ১৭টিতে আওয়ামীলীগের হার

রংপুর
কুড়িগ্রাম জেলা প্রতিনিধিঃ
কুড়িগ্রামে তৃতীয় দফায় ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) নির্বাচনে ৩টি উপজেলার ২৭টি ইউনিয়নের আওয়ামী লীগ ১০টি, বিএনপির স্বতন্ত্র-৫টি, জাতীয় পার্টি-৫টি, আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী ৪টি, ইসলামী আন্দোলন ১টি এবং স্বতন্ত্র ২টি ইউনিয়নে বিজয়ী হয়েছে।
কুড়িগ্রাম সদরের ৮টি ইউনিয়নে বিজয়ীরা হলেন- আওয়ামী লীগ থেকে বেলগাছা ইউনিয়নে লিটন মিয়া, মোগলবাসা এনামুল হক বাবুল, কাঁঠালবাড়ী ইউনিয়নে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় রেদওয়ানুল হক দুলাল বিজয়ী হয়েছেন।এছাড়াও হলোখানায় জাপা থেকে রিয়াজুল ইসলাম রেজা, পাঁচগাছিতে ইসলামী আন্দোলনের আবদুল বাতেন, বিএনপির স্বতন্ত্র ঘোগাদহে আবদুল মালেক ও ভোগডাঙ্গায় সাইদুর রহমান।
এদিকে যাত্রাপুর ইউনিয়নের চর ভগবতিপুর এলাকার ঝুনকার চর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রের ফলাফল সোমবার দুপুর পর্যন্ত ঘোষণা করা হয়নি।
ফুলবাড়ী উপজেলার ৬টি ইউনিয়নে বিজয়ীরা হলেন- আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী ফুলবাড়ি সদরে হারুন অর রশিদ হারুন, নাওডাঙ্গাতে হাসেন আলী, বড়ভিটায় আতাউর রহমান মিন্টু, ভাঙ্গামোড়ে মোহাম্মদ আলী শেখ। এছাড়া আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী শিমুলবাড়ীতে শরিফুল আলম মিয়া সোহেল, কাশিপুরে মনিরুজ্জামান মানিক।
নাগেশ্বরী উপজেলার ১৩টি ইউনিয়নে বিজয়ীরা হলেন- আওয়ামীলীগ থেকে সন্তোষপুরে লিয়াকত আলী লাকু, বেরুবাড়িতে সোলায়মান আলী, নুনখাওয়ায় আমিনুর ইসলাম। জাতীয়পার্টি থেকে কেদার ইউনিয়নে আ খ ম ওয়াজেদুল কবির রাসেদ, কচাকাটায় শাহাদাৎ হোসেন মাস্টার, রামখানায় জালাল উদ্দীন, হাসনাবাদে মো. নুরুজ্জামান।
বিএনপির স্বতন্ত্র প্রার্থী ভিতরবন্দে শফিউল আলম শফি, রায়গঞ্জে আরিফুল ইসলাম দীপ, নারায়ণপুরে মো. মোস্তফা। আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী কালীগঞ্জে রিয়াজুল ইসলাম ও বল্লভের খাস ইউনিয়নে আব্দুর রাজ্জাক এবং জাতীয় পার্টির বিদ্রোহী প্রার্থী বামনডাঙ্গায় আসাদুজ্জামান রনি।
কুড়িগ্রাম পুলিশ সুপার সৈয়দা জান্নাত আরা বলেন, দু একটি বিচ্ছিন্ন ঘটনা ছাড়া সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণভাবে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়েছে। ভোটের পরবর্তী পরিস্থিতিও আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *