আশুলিয়ায় স্বতন্ত্র ২ প্রার্থী মিলেও ঠেকাতে পারেনি নৌকার বিজয়- ভয়ংকর সংঘর্ষের আশঙ্কা

ঢাকা

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ ৫ জানুয়ারি ২০২২ইং পঞ্চম ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ভোট কারচুপির ঘটনায়
পাল্টাপাল্টি অভিযোগকে কেন্দ্র করে সাভার উপজেলার আশুলিয়া ইউনিয়নে রাজু আহমেদ ও মোঃ শাহাব উদ্দিন
চেয়ারম্যানের সমর্থন লোকজনের মধ্যে বড় ধরণের ভয়ংকর সংঘর্ষের আশঙ্কা করছেন এলাকার শান্তি প্রিয় জনসাধারণ।
এলাকাবাসী জানায়, আশুলিয়ায় স্বতন্ত্র দুইজন প্রার্থী মিলেও ঠেকাতে পারেননি নৌকার বিজয়।
জানা গেছে, পঞ্চম ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে সাভার উপজেলার আশুলিয়া ইউনিয়নে নৌকার মনোনীত
চেয়ারম্যান প্রার্থী হয়ে বিপুল ভোটে বিজয়ী হয়েছেন শাহাব উদ্দিন মাদবর। স্বতন্ত্র হেলাল উদ্দিন ঘোড়া মার্কা ও
আনারস মার্কা স্বতন্ত্র প্রার্থী রাজু আহমেদ ভোটে হেরে গিয়ে শাহাব উদ্দিন মাদবরের বিরুদ্ধে ভোট
কারচুপিসহ বিভিন্ন অভিযোগ এনে সাংবাদিক সম্মেলন করেছেন।
জানা গেছে, রাজু আহমেদ প্রথমবারের মতো স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করছেন আনারস
মার্কা। সাবেক চেয়ারম্যান হেলাল উদ্দিন মাদবর ঘোড়া মার্কা পেয়ে পুনরায় নির্বাচন করে হেরেছেন। তবে
আওয়ামী লীগের মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী ৫ জানুয়ারি পুনরায় নৌকা মার্কায় বিপুল ভোটে বিজয়ী
হয়েছেন শাহাব উদ্দিন মাদবর।
সাংবাদিক সম্মেলনে রাজু আহমেদ বলেন, শাহাব উদ্দিন ও তার লোকজন বিভিন্নভাবে হুমকি দিয়েছেন এর আগে
এবং ৫ জানুয়ারি ইউপি নির্বাচনের পর মিথ্যা অভিযোগ করেছে যে, আমি বা আমার লোকজন তাকে মেরেছি।
তিনি বলেন, শাহাব উদ্দিন ব্যালট পেপার ছিনতাই করে অবৈধভাবে সিল মেরে নৌকার বিজয় নিশ্চিত করেছে।
এদিকে গত নির্বাচনে মটরসাইকেল পুড়িয়ে, তার নৌকার অফিস ভাংচুর করে প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে মামলা দেওয়ার
অভিযোগও রয়েছে শাহাব উদ্দিনের বিরুদ্ধে।
আশুলিয়া ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান ইউপি নির্বাচনে ঘোড়া মার্কা স্বতন্ত্র প্রার্থী হেলাল উদ্দিন মাদবর
গণমাধ্যমকে বলেন, শাহাব উদ্দিন মাদবর গত নির্বাচনে নিজেই নৌকার অফিস ভাংচুর করে আমার বিরুদ্ধে মামলা
করে, এই মামলায় ৪৭জনকে আসামী করা হয়। তিনি আরও বলেন, দীর্ঘ ৪ বছর এই মামলায় হয়রানির শিকার হয়েছি
আমরা। সম্প্রতি শাহাব উদ্দিন মাদবর প্রতীক পাওয়ার আগে ও পরে নির্বাচনী এলাকায় আচরণ বিধি লঙ্ঘন করেছেন।
এ ছাড়াও গত ১৮ ডিসেম্বর এলাকায় প্রচারণায় গিয়ে এক যুবককে মারধরের অভিযোগ রয়েছে শাহাব উদ্দিন মাদবর
ও তার কর্মীদের বিরুদ্ধে।
উক্ত অভিযোগের বিষয়ে নৌকার মনোনীত চেয়ারম্যান শাহাব উদ্দিন মাদবরের ছোট ভাই আশরাফ গণমাধ্যমকে বলেন,
আমার ভাইকে রাজু আহমেদ ও তার লোকজন মারপিট করেছে, আমরা এ বিষয়ে ব্যবস্থা নিবো। এ বিষয়ে শাহাব উদ্দিন
মাদবর বলেন, রাজু আহমেদের অভিযোগগুলো সম্পূর্ণ মিথ্যা, বানোয়াট ও মনগড়া। আমি নৌকা প্রতীক পেয়ে
রাজু আহমেদের বাড়িতে গিয়েছিলাম, কারো বাড়িতে গিয়ে কেউ হুমকি দিতে পারে না। আমি চেয়ারম্যান
হিসেবে জনগণের সেবা করছি, এলাকায় উন্নয়নমূলক কাজ করেছি বলেই জনগণ আমাকে ভোট দিয়ে বিপুল
ভোটে বিজয়ী করেছেন, রাজু আহমেদ যা করছে তা মোটেই ভালো করছে না।
উক্ত ব্যাপারে সাভার উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও রিটার্নিং অফিসার ফখর উদ্দিন খাঁন গণমাধ্যমকে বলেন, আমরা
একটি অভিযোগ পেয়েছি, এই বিষয়গুলো নিয়ে রিটার্নিং কর্মকর্তারা দেখবেন। তিনি আরও বলেন, নির্বাচনী
সহিংসতার বিষয়ে আমরা জিরো টলারেন্স ঘোষণা করেছি। যেকোনো অভিযোগ পেলেই প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া
হবে বলে তিনি জানান। এদিকে পুলিশ ও র‌্যাবসহ এলাকাবাসী জানায়, এ বিষয়ে কেউ অতিরিক্ত কোনকিছু করার
চেষ্টা করলে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *