রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি সিরাজগঞ্জ ইউনিটের আয়োজনে দুর্যোগ পূর্বাভাস ভিত্তিক ওরিয়েন্টেশন অনুষ্ঠিত

রাজশাহী

 আজিজুর রহমান মুন্না, সিরাজগঞ্জ ঃ আই এফ আর সি এবং জার্মান রেড ক্রস এর সহোযোগিতায় ও রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি সিরাজগঞ্জ ইউনিটের আয়োজনে- দুর্যোগ পূর্বাভাস ভিত্তিক অরিয়েন্টেশন অনুষ্ঠিত হয়েছে। মঙ্গলবার (১১জানুয়ারি)সকাল ১১টায় সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলার হলরুমে উক্ত ওরিয়েন্টেশনের সভাপতিত্ব করেন, সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাশুকাতে রাব্বি। এসময় অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি সিরাজগঞ্জ ইউনিটের ভাইস চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মোঃ মোস্তাফা কামাল খান, সেক্রেটারি বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব এ্যাডভোকেট কে এম হোসেন আলী হাসান, সদর সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ রিয়াজ উদ্দিন, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মোছাঃ হাসনা হেনা প্রমুখ। ওরিয়েন্টেশনে মূল বিষয়বস্তু উপস্থাপন করেন, জেলা ত্রাণ ও দূর্যোগ পূর্ণবাসন কর্মকর্তা আলহাজ্ব মোঃ আব্দুর রহিম। অনুষ্ঠানটির সার্বিক দায়িত্বে ও তত্বাবধানে ছিলেন, বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি সিরাজগঞ্জ ইউনিটের সহকারী পরিচালক মোঃ রবিউল আলম ও সঞ্চালনায় ছিলেন কর্মকর্তা তাজুল ইসলাম তাজ। ওরিয়েন্টেশনে অংশ গ্রহন করেন, সদর উপজেলার স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রের টি এইচ ও ডাঃ জাহিদুল ইসলাম, সদর সিনিয়র উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা মোঃ আনোয়ার হোসেন, উপজেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা ডাঃ হারুন অর রশিদ, সদর উপজেলা পি আই ও মোহাম্মদ সাইদুল হক,সদর উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসের উপজেলা একাডেমিক সুপারভাইজার সাফা সাদরিয়া, সদর উপজেলা জনস্বাস্থ্য প্রোকৈাশল অধিদপ্তরের উপ -সহকারী প্রৌকশলী সিরাজগঞ্জ সদর মোঃ সিরাজুম মূনীর, পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা মোছাঃ রেবেকা সুলতানা, সহ অন্যান্য দপ্তরের কর্মকর্তা গণ, যুব ক্রিসেন্টের সদস্য /সদস্যা গণ সহ যুব প্রধান শাপলা খাতুন উপস্থিত ছিলেন। উক্ত ওরিয়েন্টশনে – দূর্যোগ পূর্বাভাস ভিত্তিক ও আগাম সাড়াদান /কার্যক্রম উদ্দেশ্য, প্রাণহানি কমানো,আঘাত বা ক্ষতি হ্রাস করা, প্রাণি সম্পদ এর ক্ষতি কমানো,অস্থাবর সম্পত্তি রক্ষা করা, খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করা, দূর্যোগের মানবিক প্রভাব সূমহ হ্রাস করা। এফ বি এফ /এ তিনটি ভাগে কার্যক্রম করে। ১.প্রাকৃতিক দুর্যোগসূমহের বিশদ ঝুঁকি বিশ্লেষণ ভিত্তিতে, অতীতের ঘটনাগুলী প্রভাবের মূল্যায়ন এবং বিপদাপন্নতার তথ্য সমন্বয়ে একটি অঞ্চলের জন্য বিপদের মাত্রা চিহ্নিত করা হয়।তারপর একটি পূর্বাভাস ট্রিগার নির্বাচন করা হয় যা বিপদের মাত্রা পৌছানোর আগেই কার্যক্রম বাস্তবায়ন করা হয়। দ্বিতীয় ধাপে পূর্বে নির্ধারিত কিছু কর্মকাণ্ড যা একটি দুর্যোগের ক্ষতিকর প্রভাব হ্রাস করার জন্য একটি পূর্ব নির্ধারিত পূর্বাভাসের ট্রিগার হওয়া মাত্রই যে কার্যক্রম সূমহ বাস্তবায়ন করা হয়। তৃতীয় ধাপে একটি প্রাক অর্থায়ন যা পূর্বাভাস ট্রিগার হয়ে গেলে স্বয়ংক্রিয় ভাবে অর্থ বরাদ্দ করে আগাম কার্যক্রম সূমহের কার্যকর প্রয়োগকে নিশ্চিত করে ওরিয়েন্টেশনে ভিডিও চিত্রে – ব্যাপক আলোচনা করা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *