নওগাঁয় মর্মান্তিক সড়ক দুর্ঘটনায় ৪ শিক্ষকসহ নিহত ০৫ আহত-০১

রাজশাহী

সজিব হোসেন, নওগাঁ প্রতিনিধি: নওগাঁয় সদর উপজেলার বাবলাতলী মোড় নামক স্থানে ট্রাক ও সিএনজি চালিত অটোরিক্সার মুখোমুখি সংঘর্ষে মহিলাসহ তিন জন শিক্ষক, সিএনজি অটোরিক্সার চালক ও ট্রাকের হেলপারসহ পাঁচজন নিহত হয়েছে। শুক্রবার সকাল সাড়ে ৮ টার দিকে নওগঁ-রাজশাহী মহাসড়কে বাবলাতলী মোড় নামক স্থানে এই মর্মান্তিক সড়ক দুর্ঘটনাটি ঘটে। নওগাঁর সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নজরুল ইসলাম জুয়েল জানান, শুক্রবার সকাল অনুমান সাড়ে ৮টায় ঘটনাস্থলে নওগাঁর দিক থেকে মাছের ফিড বোঝাই ঢাকা-মেট্টো-ট-১৬-৫৬১৮ নম্বরের একটি ট্রাক বগুড়া থেকে নওগাঁ-রাজশাহী মহাসড়ক দিয়ে রাজশাহীর দিকে এবং একই সময় ওই মহাসড়ক দিয়ে যাত্রী বোঝাই সিএনজি চালিত অটোরিক্সা নওগাঁর দিকে আসছিল। ট্রাক ও সিএনজি চালিত অটোরিক্সা বাবলাতলীর মোড়ে পৌছালে হঠাৎ করে বলিহার সংযোগ সড়ক থেকে একটি মাটি বোঝাই ট্রাক্টর মহাসড়কে উঠে পড়ে। এ সময় ট্রাক্টরকে সাইড দিতে গিয়ে ট্রাক এবং সিএনজি মুখোমুখি সংঘর্ষ বাধে। ট্রাকটি যাত্রী বোঝাই সিএনজিকে পিষ্ট করে সিএনজিকে নিয়ে পাশের গভীর জলাশয়ে পড়ে যায়। এতে সিএনজি দুমড়ে মুচড়ে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই নিয়ামতপুর উপজেলার ভাদুরন্দ গ্রামের ওমর আলীর মেয়ে গুজিশহর উচ্চবিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা জান্নাতুল ফেরদৌস (৩৮), বেলকাপুর উচ্চবিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক ও নিয়ামতপুরের বিজলী গ্রামের বাসিন্দা মকবুল হোসেন (৫৮), পানিহারা উচ্চবিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক ও উপজেলার বাদ নেহেন্দা গ্রামের বাসিন্দা দেলোয়ার হোসেন (৪৭), সিএনজি চালিত অটোরিক্সার চালক ডাঙ্গাপাড়া গ্রামের সেলিম উদ্দিন (৪৫) এবং ট্রাকের হেলপার গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার লেলিন হোসেন (৩৫) ঘটনাস্থলে নিহত হয়। এই ঘটনায় আহত প্রাথমিক স্কুল শিক্ষক নুর জাহান (৩২) কে আহত অবস্থায় নওগাঁ সদর হাসপতালে ভর্তি করা হয়। সে নিহত প্রাথমিক স্কুল শিক্ষিকা জান্নাতুল ফেরদৌসের বোন। তাকে উদ্ধার করে নওগাঁ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হলে সেখানে তার অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাকে উন্নত চিকিৎসা জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে। জানা গেছে, নিহত জান্নাতুল ফেরদৌস, মকবুল হোসেন ও দেলোয়ার হোসেন এবং আহত নুর জাহান সবাই কোন এক প্রশিক্ষনে অংশগ্রহন করতে নওগাঁ আসছিলেন। উদ্ধার কাজে অংশগ্রহণকারী ফায়ার সার্ভিস স্টেশনের সিনিয়র ষ্টেশন ইনচার্জ মো. শফিউল ইসলাম জানান, সংবাদ পাওয়ার সাথে সাথে তারা ঘটনাস্থলে গিয়ে উদ্ধার কার্যক্রম শুরু করে। পরে মান্দা ফায়ার সার্ভিসের আরো একটি টিম ঘটনাস্থলে এসে যোগ দেয়। পরে নওগাঁ ও মান্দা ফায়ার সার্ভিস টিম যৌথ ভাবে উদ্ধার কাজ পরিচালনা করে। ট্রাকের চাপায় সিএনজি দুমড়ে মুচড়ে গিয়ে পানির নিচে ডুবে যায়। সিএনজির বিভিন্ন অংশ পৃথক পৃথক ভাবে কেটে কেটে ভিতর থেকে একটি একটি করে পাঁচটি লাশ উদ্ধার করে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা। উদ্ধারকৃত মরদেহ গুলো ফায়ার সার্ভিস নওগাঁ সদর মডেল থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করে তাদের উদ্ধার অভিযান সমাপ্ত করে। নওগাঁর সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নজরুল ইসলাম জুয়েল জানান, এই মর্মান্তিক সড়ক দুর্ঘটনায় নওগাঁ সদও মডেল থানায় একাটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। নিহত পাঁচ জনের মরদেহ নওগাঁ সদর হাসপাতাল মর্গে রাখা হয়েছে। নিহতদের পরিবারের পক্ষ থেকে থানায় কোন অভিযোগ দায়ের না হলে ময়নাতদন্ত ছাড়াই নিহতদের মরদেহ স্ব স্ব পরিবারের নিকট হস্তান্তর করা হবে। এদিকে, নওগাঁ সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মির্জা ইমাম উদ্দিন জানান, নিহত প্রতিটি পরিবারকে দুর্যোগ ও ত্রান মন্ত্রনালয়ের আওতায় ২৫ হাজার টাকা করে অনুদান প্রদান সহ নিহতদের পারিবারিক অবস্থা বিবেচনা করে জেলা প্রশাসকের তহবিল থেকে প্রয়োজনে আরো অনুদান প্রদান করা হবে বলে তিনি জানান।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published.