রণ সিকদার ন্যাশনাল ব্যাংকের পরিচালক পুনঃনির্বাচিত

বিনোদন

মারুফ সরকার,ঢাকা: দেশের প্রথম প্রজন্মের বেসরকারি ব্যাংক ন্যাশনাল ব্যাংক লিমিটেড তাদের ৩৯তম বার্ষিক সাধারণ সভা অংশগ্রহণমূলক ও সম্পূর্ণ ডিজিটাল পদ্ধতি অনুসরণ করে দৃষ্টান্ত স্থাপন করলো। সভায় শেয়ারহোন্ডারদের ভোটে ফের পরিচালক নির্বাচিত হয়েছে রণ হক সিকদার। বৃহস্পতিবার (২৫ আগস্ট) ন্যাশনাল ব্যাংক লি. বার্ষিক সাধারণ সভাকে সামনে রেখে বাংলাদেশ ব্যাংক ও সিকিউরিটি এক্সচেঞ্জ কমিশনের বিধিবিধান অনুসরণ করে শেয়ারহোল্ডাদের জন্য ২৪ আগস্ট থেকে অনলাইনে ভোটগ্রহণ শুরু করে। শেয়ারহোল্ডাররা সাধারণ সভায় ৬৪ শতাংশ ভোট দেন। ব্যাংক কোম্পানি আইন অনুযায়ী তিন জন পরিচালক মোয়াজ্জেম হোসেন, মাবরুর হোসেন এবং রণ হক সিকদার পদত্যাগ করে পুনঃনির্বাচনে প্রার্থী হন। এরমধ্যে কেবল রণ হক সিকদার শেয়ারহোল্ডারদের মোট ভোটের ৮৭.৮৫ শতাংশ ‘হ্যাঁ’ ভোটের আস্থায় নির্বাচিত হন। অপরপক্ষে শেয়ারহোল্ডারদের ‘না’ ভোটে মোয়াজ্জেম হোসেন, মাবরুর হোসেন ব্যাংকের পরিচালক পদ হারান।

বার্ষিক সাধারণ সভায় অন্যান্য আলোচ্যসূচির মধ্যে ব্যাংকের ২০২১ সালের সমাপ্ত বছরের নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন অনুমোদিত হয়। ন্যাশনাল ব্যাংক চেয়ারম্যান মনোয়ারা সিকদার অবাধ সুষ্ঠু ও অংশগ্রহণমূলক বার্ষিক সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত করায় ব্যাংকের সকল শেয়ারহোল্ডারদের ধন্যবাদ জানান। প্রসঙ্গত, ন্যাশনাল ব্যাংক লিমিটেড বাংলাদেশের বেসরকারি মালিকানাধীন একটি ব্যাংক। এটি বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় মূলধনী প্রতিষ্ঠান। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্নেহধন্য বীর মুক্তিযোদ্ধা মরহুম জয়নুল হক সিকদার তার মেধা, মনন ও শ্রম দিয়ে ১৯৮৩ সালের ২৩ মার্চ ১০০ মিলিয়ন টাকা অনুমোদিত মূলধন এবং ৪০ মিলিয়ন টাকা পরিশোধিত মূলধন নিয়ে এই ব্যাংকের পথচলা শুরু করেন। বর্তমানে এই ব্যাংকের অনুমোদিত মূলধন ৫০ হাজার মিলিয়ন টাকা এবং পরিশোধিত মূলধন ৩০ হাজার ৬৬৪ মিলিয়ন টাকা। উল্লেখ্য, ২০১৯-২০ করবর্ষে সর্বোচ্চ করদাতা চারটি ব্যাংকের মধ্যে সম্পূর্ণ দেশীয় মালিকানায় প্রতিষ্ঠিত ন্যাশনাল ব্যাংক লিমিটেড সেরা করদাতার সম্মাননায় ভূষিত হয়েছে। দেশের অবকাঠামোগত উন্নয়নে ন্যাশনাল ব্যাংকের ভূমিকা অনস্বীকার্য।

Leave a Reply

Your email address will not be published.