1. admin@sokalerbangla.com : সকালের বাংলা :
মঙ্গলবার, ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১০:২৭ পূর্বাহ্ন
শিরবাম:
চাঁদপুরের মতলব উত্তরে দুর্বৃত্তদের দেওয়া এসিডে ঝলসে গেল মা ও মেয়ে আটক ১ রাণীশংকৈল থানা পুলিশ গভীর জঙ্গলে অভিযান চালিয়ে গ্রেফতার করল আসামি  উলিপুরে অল্প খরচে শিম চাষ, দামে খুশি কৃষকেরা সিরাজগঞ্জে কৈশোর মেলা অনুষ্ঠিত  কপিলমুনিতে রায় সাহেব বিনোদ বিহারী গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্টের উদ্বোধন  সিরাজগঞ্জে যমুনা নদীর জাটকা ইলিশ মাছ জব্দ এতিমখানায় বিতরণ।  এবারে হিলি স্থলবন্দর দিয়ে ভারত থেকে এলো ৫০ মেট্রিকটন নারিকেল অবৈধ মজুতকরে যারা ক্রাইসিস তৈরি করে তারা দেশের শত্রু——-খাদ্যমন্ত্রী  আশুলিয়ায় সামান্য বৃষ্টিতে পানির নিচে রাস্তা—হাজার হাজার শ্রমিকসহ জনগণের চরম দুভোর্গ! ভাষা দিবসে চিত্রাঙ্কন ও রচনা প্রতিযোগিতা

নড়াইলে ভোঁদড় দিয়ে মাছ শিকার ঐতিহ্যকে টিকিয়ে রেখেছে তারা 

Reporter Name
  • Update Time : শুক্রবার, ৮ ডিসেম্বর, ২০২৩
  • ১৩৪ Time View
উজ্জ্বল রায়, জেলা প্রতিনিধি নড়াইল থেকে//
নড়াইলে ভোঁদড় দিয়ে মাছ শিকারের প্রায় ৫শ বছরের ঐতিহ্য এখনও টিকে আছে। তবে নদীতে আগের মতো মাছ না পাওয়ায় এখন তা বিলুপ্তির পথে। যারা এ ঐতিহ্যকে টিকিয়ে রেখেছেন তারা এখন আর ভালো নেই। খেয়ে না খেয়ে কোনোমতে দিন কাটছে তাদের।
মূলত নদীতে মাছের পরিমাণ কমে যাওয়া ও ভোঁদড় লালন-পালনে ব্যাপক খরচের কারণে মাছ শিকারের প্রাচীন এ পদ্ধতিতে থেকে সরে আসছেন জেলেরা। বেশি সংখ্যাক জেলে তাদের ভোঁদড় বিক্রি করে দিয়েছেন। এদিকে জেলেদের বিকল্প কর্মসংস্থান সৃষ্টিতে নানা উদ্যোগের কথা বললেও ভোঁদড় দিয়ে মাছ শিকারের প্রাচীন পদ্ধতি টিকিয়ে রাখতে তেমন কোনো কার্যক্রম নেই মৎস্য বিভাগের। উজ্জ্বল রায়, জেলা প্রতিনিধি নড়াইল থেকে জানান, সরেজমিন গিয়ে জানা যায়, শত শত বছর আগে থেকে ভোঁদড় দিয়ে মাছ শিকারের প্রচলন আছে নড়াইল সদর উপজেলার গোয়াইলবাড়ি, পংকবিলা ও রতডাঙ্গা গ্রামে। এক সময় এসব অঞ্চলের বিপুল সংখ্যক জেলেরা এ পদ্ধিতে মাছ শিকারের সঙ্গে জড়িত থাকলেও সময়ের সঙ্গে সঙ্গে  তা কমতে থাকে। মূলত নদীতে মাছের পরিমাণ কমে যাওয়া ও ভোঁদড় লালন-পালনে ব্যাপক খরচের কারণে মাছ শিকারের প্রাচীন এ পদ্ধতিতে থেকে সরে আসছেন জেলেরা। বেশি সংখ্যাক জেলে তাদের ভোঁদড় বিক্রি করে দিয়েছেন। বর্তমানে শুধু গোয়াইলবাড়ির ২০টি পরিবারার এই পেশায় জড়িত রয়েছেন। তাদের অধীনে ৫টি নৌকায় মাত্র ১৬টি ভোঁদড় আছে। প্রাণীটির প্রধান খাবার মাছ। তবে ব্যাঙ ও ছোট আকৃতির জলজ পোকাও খায়। এদের জীবনকাল ৯-১০বছর।
গোয়াইলবাড়ি গ্রামের জেলে ভবেন বিশ্বাস জানান, তার বাপ-ঠাকুরদা ভোঁদড় দিয়ে মাছ শিকার করত। এখন তিনি এ পদ্ধতিতে মাছ শিকার করে জীবিকা নির্বাহ করছেন। তবে এখন নদীতে যে মাছ পাওয়া যায় তাতে কোনোদিন সংসার চলে, আবার কোনোদিন চলে না। শীত মৌসুমে একটু বেশি মাছ পাওয়া যায়। তখন সংসার চালাতে সমস্যা হয় না। কিন্তু বছরের বাকি সময় ঘাটতি।
তিনি আরও জানান, ভোঁদড়দের প্রতিদিন অন্তত ৩০০ টাকার মাছ কিনে (ক্রয় করে) খাওয়াতে হয়। স্থানীয় বাজারে মাছ না পাওয়া গেলে নড়াইল শহর থেকে মাছ এনে খাওয়াতে হয়। দিনে দুইবার খাবার দেওয়া দরকার হলেও টাকার অভাবে একবারই দেন তিনি।
গোপীনাথ বিশ্বাস নামে আরেক জেলে বলেন, আগে তারা সুন্দরবনে যেতেন মাছ ধরতে। প্রচুর পরিমাণ মাছ পেতেন। এখন সুন্দরবনে যাওয়ার অনুমতি দেয় না। এখানে অল্প কয়ডা মাছ হয়। দাম আছে বলে যাইহোক কিছু আয় করেন। না হয়ত তাদের সংসার চলে না ভালোভাবে।
হৃদয় বিশ্বাস বলেন,পাটা জাল ও চায়না জাল দিয়ে মাছ মারাসহ বিভিন্ন কারণে নদীতে মাছ কমে গেছে। ভোঁদড় দিয়ে বর্তমানে যে মাছ পাওয়া যায় তা বিক্রি করে সংসার চলে না। আয় কম হওয়ায় ভোঁদড়কে পর্যাপ্ত খাওয়াতেও পারেন না। দিন খুব কষ্টে যায়।
নড়াইল সদর উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা মো. এনামুল হক,
এ প্রতিবেদক উজ্জ্বল রায়কে জানান, দীর্ঘদিন ধরে ভোঁদড় দিয়ে মাছ ধরা জেলেদের বিভিন্নভাবে সহযোগিতা করছেন তারা। মাছ ধরার পাশাপাশি বিকল্প কর্মসংস্থান সৃষ্টিতে একটি প্রকল্পের মাধ্যমে কার্ডধারী জেলেদের দুইটি করে ছাগল ও তাদের জন্য খাদ্য সামগ্রী প্রদান করা হয়েছে। জেলেদের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে বিভিন্ন পদক্ষেপ নিতে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ করে ব্যবস্থা নেওয়ার চেষ্টা করছেন বলেও জানান এ কর্মকর্তা।
এ ব্যাপারে জেলা মৎস্য অফিসার এইচ.এম. বদরুজ্জামান, এ প্রতিবেদক উজ্জ্বল রায়কে জানান, ভোঁদড় দিয়ে মাছ শিকারের পদ্ধতি টিকিয়ে রাখতে আলাদা তেমন কোনো কার্যক্রম নেই তাদের। বাস্তবতা হচ্ছে মুক্ত জলাশয়ে মাছের পরিমাণ কমে গেছে। এ কারণে জেলেদের বিকল্প কর্মসংস্থানে বিভিন্নভাবে সহযোগিতা করছেন তারা।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
© All rights reserved , sokalerbangla.com
Theme Customized BY LatestNews